আরজে টুটুলের ‘ইয়োর ভয়েস উইথ টুটুল’

ডিবিবি ডিবিবি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২০ | আপডেট: ২:০৪:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২০ |

বিনোদন দুনিয়ার অন্যতম স্থান রেডিও। সেই স্থানটিতে শুদ্ধ উচ্চারণ, অসাধারণ বাচনভঙ্গি, মজাদার কথা এবং সাবলীল উপস্থাপনার কারণেই শ্রোতাদের কাছে তিনি ‘এফএম মামা’ হিসেবে আলাদাভাবে একটা জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন।

ইতমধ্যে আপনারা হয়তো বুঝে ফেলেছেন কার কথা বলছি। হ্যা শ্রোতাপ্রিয় আরজে টুটুলের কথাই বলছি। নিঃসন্দেহে ভক্তদের কাছে আরজে টুটুল সেরা। ‘এফএম মামা ‘ এবার হাজির হচ্ছেন আরও একটি নতুন শো ‘ইয়োর ভয়েস উইথ টুটুল’ নিয়ে। মজার একটি বিষয় হচ্ছে এই শো এর নামকরণ করা হয়েছে শ্রোতাদের দেয়া নামেই।

এটি আগামী ১৬ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে রেডিওটুডে ৮৯.৬ এফএম-এ। শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত এই অনুষ্ঠানটি শুনতে পাবেন। একই সঙ্গে এই অনুষ্ঠানের বিশেষ দু’টো সেগমেন্ট ‘লাভ লেটার’ এবং ‘পোস্টমর্টেম’; যা কি না শ্রোতাদের মধ্যে বাড়তি আকর্ষণের সৃষ্টি করবে বলে মনে করছেন টুটুল।

তিনি জানান, সপ্তাহ শুরু হবে ‘লাভ লেটার’ দিয়ে। এখানে একজন শ্রোতা তার প্রিয় মানুষকে উদ্দ্যেশ্য করে প্রেমের চিঠি বা লাভ লেটার লিখে পাঠাতে পারবেন। সেরা চিঠিগুলো শো-তে পড়ে শোনানো হবে। সবচেয়ে সেরা চিঠির জন্য থাকছে গিফট হ্যাম্পার।

এছাড়া সপ্তাহের শেষ দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাতে থাকছে পুরো সপ্তাহের মূল আয়োজন ‘পোস্টমর্টেম’। যেখানে একজন শ্রোতা সরাসরি স্টুডিওতে উপস্থিত থেকে তিনি তার জীবনের টানাপোড়ন কিংবা যেকোনো সমস্যার বিস্তারিত গল্প করতে পারবেন। তার সেই গল্পের চুলচেরা বিশ্লেষণ হবে এই বিশেষ সেগমেন্টে। এক্ষেত্রে আরজে টুটুলের সাথে কয়েকজন বিশেষজ্ঞও এই শো-তে যুক্ত থাকবেন।

এছাড়াও পুরো সপ্তাহজুড়ে গান, কবিতা, শ্রোতাদের টেক্সট, ফোনকল সবকিছুই থাকছে। মূলত শ্রোতারা যেমন চাইবেন, এই শো তে তা-ই হবে, আর সেই জন্যেই শো-এর নাম ‘ইয়োর ভয়েস উইথ টুটুল’।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে ‘রেডিও আমার’-এ আমার সকাল প্রোগ্রামের মধ্য দিয়ে টুটুলের এফএম রেডিওতে যাত্রা শুরু হয়। শ্রোতাপ্রিয় বেশকিছু অনুষ্ঠান তার শুদ্ধ কণ্ঠেই এফএম রেডিও শ্রোতারা শুনেছেন। ২০১৫-তে তিনি দেশের প্রথম প্রাইভেট স্টেশন রেডিওটুডে-তে জয়েন করেন এবং সাফল্যের সঙ্গে ‘এফএম মামা’ শো চালিয়ে যান এবং শ্রোতাদের কাছে ‘মামা’ হিসেবে দারুণ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি একই স্টেশনের ‘হেড অব প্রোগ্রাম ডেভলপমেন্ট’ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

ডিবিবি/মেহেরুজ্জামান সেফু