গণফোরাম থেকে ড. কামালকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব

ডিবিবি

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:২২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১ | আপডেট: ৭:২২:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১ |

ফের সংকটে পড়েছে গণফোরাম। গণফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বিশিষ্ট আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন দলটির শীর্ষ নেতাদের বড় একটি অংশ। তাকে বাদ দিয়েই নতুন করে দলটিকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছেন তারা।

শনিবার(২৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণফোরামের নেতাদের একটি পক্ষের বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় নেতৃত্ব দেন দলটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু। সভা থেকে ড. কামাল হোসেনকে গণফোরামের সভাপতির পদ থেকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।
একইসঙ্গে আগামী ২৮ ও ২৯ মে ঢাকায় দু’দিনব্যাপী গণফোরামের কাউন্সিল আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। বর্ধিত সভায় ২১ সদস্যের স্টিয়ারিং কমিটি, গণফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবু সাইয়িদকে আহ্বায়ক করে ১০১ সদস্যের জাতীয় নির্বাহী কমিটি এবং মোস্তফা মোহসীন মন্টুকে আহ্বায়ক করে ২০১ সদস্যের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটিও গঠন করা হয়।

এর আগে বর্ধিত সভায় দলটির সাবেক নির্বাহী কমিটির সদস্য মহসিন রশিদ ড. কামাল হোসেনকে গণফোরামের সভাপতি পদ থেকে বাদ দেওয়ার দাবি জানিয়ে বলেন, দলের মধ্যে আজ অনেক বিভাজন চলছে। এই বিভাজন বন্ধ করতে ব্যর্থ হলে সভাপতির পদ থেকে ড. কামাল হোসেনকে বাদ দেয়া উচিত। কমিটির সাবেক সদস্য সাত্তার পাঠানও একই প্রস্তাব করেন। পরে জেলা পর্যায়ের কয়েকজন নেতাও এই প্রস্তাব সমর্থন করে বক্তব্য দেন।

বর্ধিত সভা শেষে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যকর্মীদের এক প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, গণফোরামের আগামী কাউন্সিলে কাউন্সিলররা সিদ্ধান্ত নেবেন ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি হিসেবে রাখা হবে কি না। আগামী ২৮ ও ২৯ মে ঢাকায় দু’দিনব্যাপী কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। এখানেই পরবর্তী নেতৃত্ব ঠিক করা হবে।