বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ল আরও ৬ মাস

প্রকাশিত: ১১:০৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০ | আপডেট: ১১:০৪:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০ |

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া (ফাইল ছবি)

দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড স্থগিতের মেয়াদ শর্ত সাপেক্ষে আরও ছয় মাস বাড়িয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার আইন মন্ত্রণালয় মেয়াদ বাড়ানোর ব্যাপারে এ অভিমত দিয়েছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে দেশে থেকে চিকিৎসা নেয়ার পুরনো শর্তে তার সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করার পক্ষে এই সুপারিশ করেছেন তারা।

এর আগে, গত ২৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে স্থায়ীভাবে তার মুক্তি চাওয়া হয়েছিল। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ ব্যাপারে আইন মন্ত্রণালয়ের অভিমত জানতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু আইন মন্ত্রণালয় স্থায়ী মুক্তির আবেদন বিবেচনা করেনি।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বৃদ্ধি করার ব্যাপারে আমরা অভিমত দিয়েছি। তাকে দেশে থেকেই শর্ত মেনে চিকিৎসা নিতে হবে।

তিনি জানান, তারা স্থায়ী মুক্তির আবেদন করেছিলেন। সেখানে আমরা আইনগত দিক থেকে সাজা ছয় মাস স্থগিত করে এই সময় পর্যন্ত তার মুক্ত থাকার মেয়াদ বাড়ানোর মতামত দিয়েছি। আইন মন্ত্রণালয়ের এই মতামত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিষয়টি পাঠানো হবে।

খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৫ শে মার্চ শর্ত সাপেক্ষে নির্বাহী আদেশে সাজা স্থগিত করে ছয় মাসের জন্য সরকার খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়েছিল সরকার। সেই মুক্তির মেয়াদ আগামী ২৪শে সেপ্টেম্বর শেষ হতে যাচ্ছে। সেই প্রেক্ষাপটে গত ২৫ শে অগাস্ট শামীম ইস্কান্দার পরিবারের পক্ষ থেকে স্থায়ী মুক্তি চেয়ে আবেদন করেন।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২০১১ সালের আগস্টে তেজগাঁও থানায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চার জনের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও অজ্ঞাত সূত্র থেকে টাকা সংগ্রহের অভিযোগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা দায়ের করে। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ খালেদা জিয়া এবং আরও তিন জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। তারা হলেন, খালেদার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছ চৌধুরীর তখনকার একান্ত সচিব জিয়াউল ইসলাম মুন্না ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।