বুলডোজার দিয়ে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে আবরার ফাহাদের নামে গড়া স্মৃতিস্তম্ভ

প্রকাশিত: ৭:১৮ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৮, ২০২০ | আপডেট: ৭:১৮:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৮, ২০২০ |

বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হয়েছে বুয়েটে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নির্যাতনে নিহত শেরে বাংলা হলের শিক্ষার্থী আবরার ফাহদের স্মৃতিতে গড়া ‘আগ্রাসন বিরোধী আট স্তম্ভ’।

বুধবার রাতে একটি বুলডোজার দিয়ে স্মৃতিস্তম্ভটি গুড়িয়ে দিতে দেখা যায়।

মঙ্গলবার রাতে আবরার ফাহাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসাইনের তত্ত্বাবধানে আবরার ফাহাদ স্মৃতি সংসদের নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বুয়েট সংলগ্ন পলাশীর মোড়ে এ স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয়।

শিক্ষার্থীরা জানায়, পলাশীর মোড়ের নির্মিত এই স্তম্ভ আটটি পিলার ও একটি ফলক দিয়ে নির্মিত হয়েছে। বিউপনিবেশায়ন, সাংস্কৃতিক স্বাধীনতা, নদী বন বন্দর রক্ষা, অর্থনৈতিক নির্ভরতা, সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, গণপ্রতিরক্ষা, সম্প্রীতি এই আটটি শব্দমালা নিয়ে তৈরি হয়েছে আটটি পিলার।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের বলেন, এটা সিটি করপোরেশনই ভেঙে ফেলেছে। এর কারণ হচ্ছে, এ ধরনের স্তম্ভ তৈরি করতে হলে সিটি করপোরেশনের অনুমতি নিতে হয়। তারা অনুমতি না নিয়েই রাতারাতি এটি তৈরি করেছে। কেউ এ ধরনের অনুমতি চাইলে তা একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করতে হয়। তারা সেটি করেনি। আরেকটি কারণ হচ্ছে, এটা রাস্তার মাঝখানে অপরিকল্পিতভাবে তৈরি করা হয়েছে। তারা যেটা করেছে, তাতে দুর্ঘটনার ঝুঁকি রয়েছে। তাই সিটি করপোরেশন এটা ভেঙে ফেলেছে।

২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে-বাংলা হলে ছাত্রলীগের নেতার্কমীদের পিটুনিতে নিহত হয় আবরার ফাহাদ। পরদিন ৭ অক্টোবর ভোরে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরবর্তীতে ঘটনায় প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার দায়ে বুয়েটের ২৬ শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ।