শাহজাদপুরে বহুতল মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, ১০ ইলেকট্রনিক্স দোকান ভষ্মীভূত

মনিরুল গনি চৌধুরী শুভ্র ডিবিবি

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | আপডেট: ৯:৪৯:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ |

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের মনিরামপুর বাজারের সিরাজ প্লাজার তৃতীয় তলায় বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ২ টার দিকে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় তৃতীয় তলার অন্তত ১০টি ইলেকট্রনিক্স দোকানের সম্পূর্ণ মালামাল পুড়ে গেছে। এতে কমপক্ষে ১ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত দোকান মালিকরা জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে ওই মার্কেটের দোকান মালিক হারুন ও শাকিল জানায়,এ দিন দুপুরে হঠাৎ বিকট গন্ধ ও কালো ধোয়ার সৃষ্টি হয়। দৌড়ে ৩ তলায় গিয়ে দেখি কালো ধোয়ায় চারদিক অন্ধকার হয়ে গেছে। এ সময় আমাদের চিৎকারে অন্যান্য দোকান মালিকরা দৌড়ে এসে প্রথমে নিজেরাই আগুন নিভাতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে শাহজাদপুর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেই। তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে উপজেলা পরিষদের পুকুর থেকে পানির ব্যবস্থা করে আগুন নিভানোর কাজ শুরু করে। এরপর উল্লাপাড়া থেকে ফায়ার সার্ভিসের আরো একটি দল এসে আগুন নিভানোর কাজে যোগ দেয়। ফায়ার সার্ভিসেরএ দুটি ইউনিট প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তারা আরো বলেন ধোয়ার কারণে মার্কেটের ভিতরে প্রচন্ড তাপ ও ভ্যাপ্সা গরমে ২ জন কর্মী অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ছাড়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ১০/১২ ফুট ব্যাসের ফ্লাক্সিবল পাইপের সাহায্যে ভিতরে বাতাস সরবরাহ করে তাপমাত্র কমিয়ে আনার চেষ্টা করে।

খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে আশপাশের সড়কের যানজট ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। খবর পেয়ে শাহজাদপুর পল্লী বিদ্যুতের কর্মীরা আশপাশের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে শহরবাসি চরম দূর্ভোগে পড়ে।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মো: মঞ্জিল হক বলেন,খবর পাওয়া মাত্র আমাদের শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়া উপজেলার দু‘টি ইউনিট আগুন নিভাতে কাজ শুরু করে। অল্প সময়ের মধ্যে তারা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হওয়ায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক কম হয়েছে। তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়েছে।