শিকল ভাঙার গল্প

মোঃ রবিন ডিবিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৭:২১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪৬:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১ |

ফটো ক্রেডিট: দ্য ডেইলি স্টার

তাদের গল্পটাও হতে পারতো বাকি আট-দশজন ট্রান্সজেন্ডার বা তৃতীয়লিঙ্গের মানুষের মতোই। কিন্তু তারা তাদের গল্পে এনেছেন এক প্রত্যয়দীপ্ত পরিবর্তন, যোগ করেছেন এক অনন্য মাত্রা। শিকল ভেঙে এগিয়ে গিয়েছেন অনেকদূর। বৈষম্য, বঞ্চনা, প্রতিকূল পরিস্থিতি ডিঙিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন আপন গতিতে। নিজেদের লালিত স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার নিমিত্তে তারা আজ দুর্বার এবং প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

বলছিলাম হো চি মিন ইসলাম এবং তাসনুভা আনান শিশিরের শিকল ভাঙার গল্প। যেখানে সমাজের তৃতীয়লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর বিরাট একটা অংশই গৎবাঁধা জীবনধারায় বিস্বাসী সেখানে হো চি মিন ইসলাম এবং তাসনুভা আনান বেঁধেছেন এগিয়ে যাওয়ার এবং সমাজকে এগিয়ে নেয়ার সুর। উচ্চশিক্ষায় সাফল্য স্বরূপ তারা মনোনীত হয়েছেন ব্র্যাক জেমস পি গ্রান্ট স্কুল স্কলারশিপে। ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির জনস্বাস্থ্য প্রোগ্রামে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী গ্রহণের সুবিধার্থে তারা এই বৃত্তির জন্য মনোনীত হয়েছেন।

ইতিমধ্যে তারা অনলাইনে ক্লাস শুরু করে দিয়েছেন।

তাসনুভা এবং হো চি মিন দুজনের কণ্ঠেই তৃতীয়লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নেয়ার প্রবল আগ্রহ ফুটে উঠেছে। তাসনুভা আনাম যিনি মঞ্চঅভিনয়ের সাথে যুক্ত আছেন বলেন, “আমি মনে করি আমার সম্প্রদায়ের সুস্বাস্থ্য এবং সামাজিক গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে এখনো অনেক কিছু অর্জন করা বাকি।” “আমি আমার জনগণের পক্ষে কাজ করতে চাই এবং তাদের সমস্যাগুলির সমাধান করতে চাই।”

করোনা মহামারীর সম্মুখযোদ্ধাদের একজন, নার্স এবং মানবাধিকারকর্মী হো চি মিন ইসলাম মনে করেন, সুষ্ঠ বিধান ছাড়া সমতার ভিত্তি ক্ষণস্থায়ী। সমাজে এখনো সবার জন্য সমান প্ল্যাটফর্ম তৈরি হয়নি। আমাদের দেশের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর কল্যানে আরো কাজ করা উচিৎ।

হো চি মিনের স্বপ্ন জনস্বাস্থ্য খাতে আমূল পরিবর্তন এবং তৃতীয় লিঙ্গের স্বাস্থ্যসেবা এবং অন্যান্য খাতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনা। তিনি আরো বলেন, “একজন নার্স হিসেবে আমি প্রান্তিক জনপদের মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চাই।”

তাসনুভা আনান এবং হো চি মিন ইসলাম দুজনই শিকল ভাঙার এক অনন্য উদাহরণ। তাদের এই অগ্রযাত্রা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকুক সমাজের পিছিয়ে পড়া এবং অবহেলিত জনগোষ্ঠীর মানুষের কাছে৷ তারাও এগিয়ে আসুক আর আমরাও বাড়িয়ে দেয় আমাদের সহযোগিতার হাত। বৈষম্য ভুলে, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দেশ বিনির্মানে অংশীদার হই। তাসনুভা আনান এবং হো চি মিন ইসলামের প্রতি রইল শ্রদ্ধা, সম্মান এবং ভালোবাসা।