dark_mode
Thursday, 27 January 2022
Logo

বিশ্বজুড়ে আরও সাড়ে ৫ হাজার প্রাণহানি

বিশ্বজুড়ে আরও সাড়ে ৫ হাজার প্রাণহানি

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ৬০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৪ হাজার ১০১ জন।

এর আগের ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ৫৯৫ জনের মৃত্যু হয় এবং আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছিলেন তিন লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন।

মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০ লাখ ২০ হাজার ৫৪৮ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ২৪ কোটি ৭৮ লাখ ৫৪ হাজার ৫৬৮ জনে।

Share this news

Print this news

  • comment / reply_from

    face comment

    বিশ্বজুড়ে একদিনে করোনায় মৃত্যু ১০২২১, শনাক্ত আরও ৩৫ লাখ

    ডিবিবি

    বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১০ হাজার ২২১ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখ ৪৪ হাজার ৭৩৮ জনে।

     

    একই সময়ে নতুন করে ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন আরও ৩৪ লাখ ৯৯ হাজার ৭৮ জন। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬ কোটি ২৯ লাখ ৬ হাজার ৬১১ জনে।

     

    বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসের নিয়মিত আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

     

    যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। এসময়ে দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ২৬ হাজার ৬১ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬২ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৭ কোটি ৪১ লাখ ৬৯ হাজার ১৫১ জন করোনায় আক্রান্ত এবং মারা গেছেন ৮ লাখ ৯৮ হাজার ২৯৯ জন।

    করোনার তাণ্ডব: বিশ্বজুড়ে কমেছে সংক্রমণ, বেড়েছে প্রাণহানি

    ডিবিবি

    চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। তবে আগের দিনের তুলনায় কমেছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা।

     

    মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ হাজার ৯২০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ১৩০০।

     

    এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৬ লাখ ২২ হাজার ৪৪ জনে। একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২০ লাখ ২২ হাজার ৪৬১ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় দেড় লাখ। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ কোটি ৪৮ লাখ ৮ হাজার ১৯৩ জনে।

     

    এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ফ্রান্স, ইতালি, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল ও কলম্বিয়া।

    দেশে করোনায় সংক্রমণ বেড়েছে ১৮০ শতাংশ

    ডিবিবি

    দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, গত এক সপ্তাহে (১৭ জানুয়ারি-২৩ জানুয়ারি) করোনা সংক্রমণ বেড়েছে ১৮০ শতাংশ। একইসঙ্গে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বেড়েছে ৮৮ শতাংশ। এদিকে, একদিনেই দেশে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৮২৮ জন; মৃত্যু হয়েছে ১৫ জনের।

    সোমবার (২৪ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত এপিডেমিওলজি প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

    এতে বলা হয়েছে, গত এক সপ্তাহে দেশে দুই লাখ ৫৫ হাজার ৪৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৭ হাজার ৪২৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগের সপ্তাহে (১০-১৬ জানুয়ারি) এক লাখ ৮৯ হাজার ৬৩০টি নমুনা পরীক্ষায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৪ হাজার ১১ জন। এতে দেখা গেছে, এক সপ্তাহের ব্যবধানে সংক্রমণ বেড়েছে ১৮০ দশমিক ৮ শতাংশ।

    প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত এক সপ্তাহে দেশে করোনায় ৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আগের সপ্তাহে এ সংখ্যা ছিল ৪২। সপ্তাহের ব্যবধানে দেশে মৃত্যু বেড়েছে ৮৮ দশমিক ১ শতাংশ।

    ফাইজার-মডার্নার বুস্টার ডোজ ওমিক্রনের বিরুদ্ধে ৯০ শতাংশ কার্যকরঃ গবেষণা

    ডিবিবি

    করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে ফাইজার ও মডার্নার বুস্টার ডোজ ৯০ শতাংশ কার্যকর বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি)। তাদের তিনটি গবেষণায় এই ফল পাওয়া গেছে।

    গবেষণায় দেখা গেছে, মডার্না এবং ফাইজারের বুস্টার ডোজ অধিক কার্যকরী। হাসপাতালে ভর্তি হওয়া কমাতে এই দুই প্রতিষ্ঠানের টিকা কার্যকর বলে প্রমাণ হয়েছে। গবেষণার অন্যতম সদস্য সিডিসির এমা অ্যাকরসি বলেন, আগের দুই ডোজ নেয়ার পর পাঁচ মাস অতিবাহিত হওয়া মার্কিনিদের অবশ্যই বুস্টার ডোজ নেয়া উচিত। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা ও আলজাজিরার।

    সিডিসির গবেষণায় দেখা গেছে, ফাইজার অথবা মডার্নার প্রথম দুই ডোজ নিলে টিকা গ্রহণকারীরা হাসপাতালে ভর্তির ক্ষেত্রে ছয় মাস পর্যন্ত ৯০ শতাংশ সুরক্ষা পায়। পরবর্তীতে তা ৮১ শতাংশে নেমে আসে। তবে করোনার তৃতীয় ডোজ বা বুস্টার নেয়ার ফলে হাসপাতালে ভর্তির বিরুদ্ধে কার্যকারিতা বেড়ে ৯৪ শতাংশে পৌঁছায়। ওমিক্রন ধরনের ক্ষেত্রেও দেখা গেছে, বুস্টার ডোজ নেয়ার দুই সপ্তাহ ব্যবধানে এটি ৯০ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।

     

    বিশ্বে করোনা সংক্রমণ ৩৫ কোটি ছাড়ালো

    ডিবিবি

    প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রভাবে সারাবিশ্বে প্রতিদিন সংক্রমণের নতুন নতুন রেকর্ড হচ্ছে। বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় সংক্রমিত হয়ে আরও চার হাজার ৬২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২১ লাখ ৬৬ হাজার ৯১৬ জন। এছাড়া আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লাখ ১৫ হাজার ৬২৭ জন।

     

    এ নিয়ে মহামারি শুরুর পর বিশ্বে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৫৬ লাখ ১৪ হাজার ৩৩৬ জনে। আর সংক্রমণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ কোটি ১৯ লাখ ১৯ হাজার ৫০৪ জনে। এছাড়া সেরে উঠেছেন মোট ২৭ কোটি ৯৬ লাখ ৮৪ হাজার ৪৮০ জন।

     

    সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

     

    গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত হয়েছে ভারতে। বৈশ্বিক সংক্রমণেও সারাবিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দেশটি। একদিনে সেখানে সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লাখ ৫ হাজার ১৭১ জন। আর মারা গেছেন ৪৭৪ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৮৯ হাজার ৮৯৬ জনের মৃত্যু ও ৩ কোটি ৯৫ লাখ ৪২ হাজার ৪৩৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন। আর সেরে উঠেছেন ৩ কোটি ৬৭ লাখ ৯৩ হাজার জন।

     

    দৈনিক সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতের পরেই রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে একদিনে সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লাখ ১ হাজার ৬১৪ জন। আর মারা গেছেন ১১৫ জন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত এক লাখ ২৮ হাজার ৬২৯ জনের মৃত্যু ও এক কোটি ৬৬ লাখ ৯২ হাজার ৪৩২ জন সংক্রমিত হয়েছেন। আর সেরে উঠেছেন ১ কোটি ১ লাখ ৮৯ হাজার ৩০৫ জন।

     

    করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৩৭৪ জন। একই সময়ে মারা গেছেন ৫৭৪ জন। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত করোনায় ৭ কোটি ১৯ লাখ ২৫ হাজার ৯৩১ জন সংক্রমিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৮ লাখ ৮৯ হাজার ১৯৭ জন।

     

    মোট সংক্রমণের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃতের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৬৬ জন। এছাড়া নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৮৪ হাজার ২৩০ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২ কোটি ৪০ লাখ ৪৪ হাজার ৪৩৭ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৬ লাখ ২৩ হাজার ১৪৫ জন।

     

    সংক্রমণের তালিকায় এরপরেই রয়েছে ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ইতালি, স্পেন ও জার্মানি।

    এদিকে, বাংলাদেশেও ওমিক্রনের প্রভাবে ফের সংক্রমণ বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন রোগী হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯০৬ জন। একদিনে শনাক্তের হার ছিল ৩১ শতাংশেরও বেশি। এ নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৬ লাখ ৮৫ হাজার ১৩৬ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৮ হাজার ২২৩ জন।

     

    ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশের হুবেই শহরে প্রথম করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। কয়েক মাসের মধ্যেই ভাইরাসটি বিশ্বের অধিকাংশ দেশে ছড়িয়ে পড়ে। গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে।

    করোনায় একদিনে শনাক্ত ১০৯০৬, মৃত্যু ১৪

    ডিবিবি

    প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড ১৯) নতুন ধরন ওমিক্রনের চোখ রাঙানিতে দেশে সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় (শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে আক্রান্ত রোগী হিসেবে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১০ হাজার ৯০৬ জন। শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ২৯ শতাংশ।

     

    এ নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৬ লাখ ৮৫ হাজার ১৩৬ জনে। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৮ হাজার ২২৩ জন। এর আগের দিন (২২ জানুয়ারি) সাড়ে ৯ হাজারের বেশি শনাক্ত ও ১৭ জনের মৃত্যু হয়।

     

    রোববার (২৩ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

    এতে আরও বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি-

    বেসরকারি ৮৫৭টি ল্যাবরেটরিতে ৩৫ হাজার ৫১ জনের নমুনা সংগ্রহ ও ৩৪ হাজার ৮৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হন ১০ হাজার ৯০৬ জন। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ২৯ শতাংশ।

     

    এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২১ লাখ ১৬ হাজার ৮৮০টি। এতে মোট শনাক্ত হন ১৬ লাখ ৭৪ হাজার ২৩০ জন। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের মোট হার ১৩ দশমিক ৯১ শতাংশ।

     

    ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ৮ জন নারী ও ৬ জন পুরুষ। মারা যাওয়াদের বিভাগওয়ারি বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে ৫ জন, চট্টগ্রাম, সিলেট ও ময়মনসিংহ ২ জন করে এবং খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগে একজন করে মারা গেছেন। এদিন রাজশাহী বিভাগে কারও মৃত্যু হয়নি।

     

    মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব চারজন, ষাটোর্ধ্ব পাঁচজন, সত্তোরোর্ধ্ব একজন এবং আশির্ধ্ব দুইজন রয়েছেন।

     

    বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, একদিনে সেরে উঠেছেন ৭৮২ জন। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ১৫ লাখ ৫৬ হাজার ৮৬১ জন।

     

    দেশে ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় এবং এর ১০ দিন পর করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয়।

    বিশ্বে একদিনে করোনায় আক্রান্ত ১৯ লাখ, মৃত্যু ৩৯৯০

    ডিবিবি

    বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস মহামারির অভিঘাত থামছেই না। প্রতিদিনই বাড়ছে সংক্রমণ আর মৃত্যু। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায়ও বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩ হাজার ৯৯০ জন। আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে দেড় হাজারের বেশি। মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৫ লাখ ৫৭ হাজার ৭৩৭ জনে।

     

    ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৩৯ হাজার ৮৯৫ জন। আগের দিনের তুলনায় দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় ৪ লাখ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ কোটি ৮৭ লাখ ৭৪ হাজার ২৬৮ জনে।

     

    সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার নিয়মিত হালনাগাদ তথ্য দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

     

    বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। এই সময়ে সবচেয়ে মৃত্যু হয়েছে রাশিয়ায়। দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। এরপরই যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, মেক্সিকো, তুরস্ক, কলম্বিয়া, ফ্রান্স, ব্রাজিল ও যুক্তরাজ্যের মতো দেশগুলো রয়েছে এ তালিকায়।

    বিশ্বে একদিনে ২৪ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত

    ডিবিবি

    এক সপ্তাহ পর বিশ্বব্যাপী কিছুটা কমলো দৈনিক সংক্রমণ শনাক্তের সংখ্যা। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) নতুনভাবে ২৪ লাখ মানুষের দেহে মিললো করোনা।

     

    এদিন ভাইরাসের প্রকোপে প্রাণ হারিয়েছেন আরও পাঁচ হাজার ৭০০ মানুষ। যা ১৭ অক্টোবরের পর সর্বনিম্ন। অবশ্য, দৈনিক মৃত্যু ও সংক্রমণের শীর্ষে এখনো যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে শনিবারও ৪ লাখের বেশি মানুষের দেহে মিললো করোনা। এদিন, মার্কিন মুলুকে প্রাণ হারান ৮৮৬ জন।

     

    সপ্তাহজুড়ে দিনে ৩ লাখের ওপর সংক্রমণ শনাক্ত দেখছে ফ্রান্স। ইউরোপের দুই প্রতিবেশী ইতালি ও স্পেনেও দু’লাখের কাছাকাছি মানুষের শরীরে মিললো ভাইরাসটির উপস্থিতি। ভারতে দু’লাখ ৭১ হাজারের মতো শনাক্ত হলো সংক্রমণ। প্রাণ হারিয়েছেন ৩১৪ জন। এদিকে, রাশিয়ায় দৈনিক প্রাণহানি ৭২৩ জন হলেও নিম্নমুখী শনাক্তের হার।

    newsletter

    newsletter_description